সোমবার , অক্টোবর 26 2020
Home / Slide1 / ব্যক্তিগত সাফল্যের চেয়ে দলগত সাফল্যে বেশি খুশি দ. আফ্রিকার কোচ বাউচারের
PORT ELIZABETH, SOUTH AFRICA - JANUARY 19: Proteas head coach, Mark Boucher at the postmatch press conference during day 4 of the 3rd Test match between South Africa and England at St Georges Park on January 19, 2020 in Port Elizabeth, South Africa. (Photo by Ashley Vlotman/Gallo Images)

ব্যক্তিগত সাফল্যের চেয়ে দলগত সাফল্যে বেশি খুশি দ. আফ্রিকার কোচ বাউচারের

ইকবাল হাসান:

আমরা ভালো ক্রিকেটার চাই না যারা দলগত ভাবে র‍্যাংকিংয়ে আট নম্বরে থাকে। এই কথাটি দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ মার্ক বাউচারের।

দক্ষিণ আফ্রিকার দায়িত্ব নেয়াত পর দলটাকে পা থেকে মাথা পর্যন্ত নিজের মতো সাজাতে চাচ্ছেন মার্ক। এতে পূর্ন সমর্থন আছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের। বাউচারের কাছে ভালো খেলোয়াড়ের কোন দাম নেই যদি দলগতভাবে দলটি র‍্যাংকিংয়ের আট নম্বরে থাকে।

দক্ষিণ আফ্রিকা বর্তমানে আইসিসি টেস্ট র‍্যাংকিংয়ের ষষ্ঠ, টি-২০ ও ওয়ানডেতে পাঁচ নম্বরে।
সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে দক্ষিণ আফ্রিকা দল নিয়ে নানা প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন দেশটির প্রধান কোচ মার্ক বাউচার। সেখানেই বাউচার জানিয়েছেন তার কাছে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ দলের পারফরম্যান্স, কয়েকজন ভালো ক্রিকেটার নয়। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ দলের পারফরম্যান্স। আমি কয়েকজন ভালো ক্রিকেটারের একটি দল চাই না যারা বিশ্ব র‍্যাংকিংয়ে আট নম্বরে থাকে। আমি এমন একটি দল চাই যারা এক নম্বর স্থানের জন্য লড়াই করতে প্রস্তুত।’

হুট করে ডেল স্টেইন, এবি ডিই ভিলিয়ার্স, হাসিম আমলা, ভার্নন ফিলান্দার, মর্নি মরকেল এবং ইমরান তাহিরের মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড়রা অবসরের ঘোষণা দেয়ায় অনেকটা খেই হারিয়ে ফেলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল। তাদের শূন্য স্থান পূরণের চেষ্টা চলছে কিন্তু সেটা এতো সোজা নয়। ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে অভিজ্ঞ ও তারুণ্যের মিশেলে গড়া দারুণ এক দল নিয়ে ইংল্যান্ডে পা রাখলেও সেই টুর্নামেন্টে ৭ম হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর ভারত এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ হারে দলটি।

দক্ষিণ আফ্রিকায় ক্রিকেট ফেরার সম্ভবনা বাড়ছে। এই সপ্তাহে দেশটিতে লকডাউন লেভেল একে নামিয়ে আনা হয়েছে। আর তাতেই ক্রিকেট মাঠে ফেরানোর স্বপ্ন বুনছেন বাউচার। তিনি বলেন, ‘আমরা মাঠে নামতে চাই এবং খেলা শুরু করতে চাই। এটা অনেক বড় একটি ছুটি ছিল। আমি মনে করি স্কুলের পর থেকে এত বড় ছুটি ক্রিকেটাররা আর কখনো পায়নি। যদিও তারা নিজেদের মতো ঠিকই অনুশীলন করছে। কিন্তু একজন কোচ হিসেবে আমি চাই এই অনুশীলনকে খেলার মাঠে নিয়ে যেতে। কয়েকজন খেলোয়াড় যদিও আইপিএল খেলছে, তাদের জন্য আমি খুবই খুশি কিন্তু বাকিদেরও খেলতে হবে।’

এছাড়া তিনি তার তরুণ দলটিকে নিয়ে বলেন, ‘আমরা ভুল করব কারণ আমরা অনেক তরুণ একটি দল। তবে এটা ততক্ষণ পর্যন্ত ঠিক আছে যতক্ষণ পর্যন্ত তা থেকে আমরা শিখব। আর এভাবেই আমরা ভালো একটি দলে পরিণত হবো। আমার দলের সবার শেখার আগ্রহ আছে অনেক এবং তারা সেটা বড় বড় টুর্নামেন্টেও অংশগ্রহণ করে প্রতিফলন দেখাতে চায়।’

About Md Shahadat Hossain

Check Also

জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন শুরু

ইকবাল হাসান:নেপালের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচকে সামনে রেখে দেশীয় কোচদের অধীনে ফিটনেস ট্রেনিংয়ে যোগ দেন ১৫ …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।